এক গ্লাস দুধে পুরো বিল পরিশোধিত

(   অনূদিত     )

 

একদিন একটি দরিদ্র ছেলে, যে ঘরে ঘরে পণ্য বিক্রি করে তার স্কুলের  খরচ উপার্জন করত, একদিন দিনের শেষে সে যখন খুব ক্ষুধার্ত তখন  তার পকেটে হাত ঢুকিয়ে দেখতে পেল যে পকেটে কেবল একটি মাত্র টাকা পড়ে আছে। উপায়ান্তর না দেখে সে সিদ্ধান্ত নিল যে সে পাশের বাড়িতে খাবার চাইবে।

নক করতেই, একজন সুদর্শন তরুণী দরজা খুলতেই সে অবশিষ্ট শক্তিটুকু হারিয়ে ধপ করে সিঁড়ির উপর বসে পড়ল।

ইতস্তত করে সে খাবার না চেয়ে একটু পানি খেতে চাইলো। তরুণীটি তাকে দেখেই বুঝল যে ছেলেটি খুব ক্ষুধার্ত আর তাই তার জন্য পানির পরিবর্তে একটি বড় গ্লাস ভর্তি দুধ আনলেন।

ছেলেটি আস্তে আস্তে সবটুকু দুধ পান করে সভয়ে তরুণীটিকে জিজ্ঞেস করলো “দুধের জন্য কত টাকা দিতে হবে?”  

“তোমাকে কোন টাকা দিতে হবে না।” তিনি জবাব দিলেন। “মা আমাদের শিখিয়েছেন কাউকে দয়া করলে কখনই তার কাছ থেকে কোনও মূল্য নিতে হয় না।”

ছেলেটি বলল, “আমি আপনাকে মন থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং আপনার জন্য দোয়া করছি।”

সেই ছেলেটি যে তখন হাল ছেড়ে দিতে প্রস্তুত ছিল, তরুণীটির দান গ্রহন করার পর সে কেবল শারীরিকভাবেই শক্তিশালী বোধ করল না সে দিন থেকে মানুষ এবং সৃষ্টিকর্তার উপর তার বিশ্বাস আরো দৃঢ় হল।

ছেলেটির নাম ছিল হাওয়ার্ড কেলি।

অনেক বছর পরে সেই তরুণী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ল। স্থানীয় চিকিৎসকরা হাল ছেড়ে দিয়ে তাকে অবশেষে চিকিৎসার জন্য বড় শহরে প্রেরণ করল। যেখানে তারা বিরল রোগটি অধ্যয়ন করার জন্য বিশেষজ্ঞদের ডাকল। ডাঃ হাওয়ার্ড কেলিকেও পরামর্শের জন্য ডাকা হল।  রোগী যে শহরে থেকে এসেছিলেন সেই শহরের নাম শুনতেই ডাঃ হাওয়ার্ড কেলির চোখ অদ্ভুত এক আলোক রশ্মিতে ভরে গেল।  তাত্ক্ষণিকভাবে তিনি উঠলেন এবং ডাক্তারের গাউন পরে হাসপাতালের হল থেকে বের হয়ে রোগীর ঘরে গেলেন। ডাঃ হাওয়ার্ড কেলি রোগীটিকে প্রথম দর্শনেই চিনে ফেললেন। তিনি তার কক্ষে ফেরত গেলেন এবং রোগীটির জীবন বাঁচানোর জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করার জন্য দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ হলেন। সেদিন থেকে তিনি ওই রোগীর বিষয়ে বিশেষ মনোযোগ দিতে শুরু করলেন।

দীর্ঘ লড়াইয়ের পর তিনি যুদ্ধে বিজয়ী হলেন। রোগী সুস্থ হয়ে উঠলো। ডঃ কেলি চূড়ান্ত বিলটি অনুমোদনের জন্য তার কাছে পাঠানোর জন্য হাসপাতাল ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করলেন।   

ডঃ কেলি বিলটি দেখলেন এবং তার উপর কিছু একটা লিখে সেটি রোগীর ঘরে প্রেরণ করলেন।

রোগী বিলটি খুলতে সত্যিই ভয় পাচ্ছিলেন কারণ তিনি নিশ্চিত ছিলেন যে এই বিল পরিশোধ করতে তার বাকী জীবনটি কাটাতে হবে।

অবশেষে তিনি তাকালেন বিলটির দিকে এবং বিলতির উপর এক পাশে কিছু হাতের লেখার উপর তার দৃষ্টি আটকে গেল। তিনি তা পড়তে শুরু করলেন:

 

“এক গ্লাস দুধে পুরো বিল পরিশোধিত”

স্বাক্ষরিত, ডাঃ হাওয়ার্ড কেলি।

Category: Bangla, Moral Stories

Write a comment