ঝাঁক বেধে উড়ে যাওয়া হাস পাখীর বোধশক্তি

  ( অনুদিত )

 

 

শীতের তীব্রতা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য, উত্তরের হাস পাখি ঝাক   বেধে প্রতি  শরত্কালে দক্ষিণে উড়ে আসতে দেখা যায়। এধরনের পাখীর ঝাঁকগুলো ইংরেজি অক্ষর “ভি” আকার ধারন করে উড়ে যায়। পাখীগুলো “ভি” আকার ধারন করে কেন ওড়ে সে সম্পর্কে বিজ্ঞানের ব্যাখ্যা জানলে সবাই চমৎকৃত হবে।

একটি ঝাকের মধ্যে প্রতিটি পাখি যখন তার ডানা ঝাপটায় তখন প্রতিটি পাখী তার পিছনের পাখীটার জন্য এক ধরনের উত্তোলন সহায়ক চাপ  তৈরি করে। এভাবে প্রতিটি পাখি একাকী উড়লে যে পরিমাণ উত্তোলন সহায়ক চাপ তৈরি করতো “ভি” গঠনে উড়ে যাওয়ার মাধ্যমে সেটা ৭১ শতাংশ বেশী উত্তোলন সহায়ক চাপ তিরি করে। অর্থাৎ ঝাকে উড়া হাস একাকী উড়া হাসের থেকে ৭১ শতাংশ কম শ্রম ব্যয় করতে হয়।

একই ভাবে কোন সমমনা জনগোষ্ঠী যারা একটি অভিন্ন সাধারণ গন্তব্য অনুসরণ করে এগিয়ে যায়, তারা যদি একে অপরের সহযোগিতার উপর  নির্ভর করে অগ্রসর হয় তবে তারা অধিকতর দ্রুততার সাথে এবং আরো সহজে তাদের গন্তব্বে পৌছাতে সক্ষম হয়।

উড়ার সময় যদি কোন একটি পাখী কোন কারণে নিদ্রিস্ট গঠনের বাইরে  চলে যায় তখন ওই হাসটি হঠাৎ করে নিম্নগামী চাপ ও প্রতিরোধ অনুভব  করে, তখনই সে সম্মিলিত উত্তোলন সহায়ক চাপের সুবিধা নেয়ার জন্য দ্রুত আবার গঠনে অর্থাৎ ঝাঁকে ফিরে  আসে।   

আমাদের যদি শীতের ঝাঁক বাধা হাস পাখীর মত বোধশক্তি থাকে তবে নিশ্চিত ভাবে আমরা সমমনা জনগোষ্ঠী দলবদ্ধ হয়ে তুলনামূলক কম শক্তি ব্যয় করে পারস্পারিক সহযোগীতার উপর ভিত্তি করে অভিন্ন লক্ষের দিকে এগিয়ে যাবো।  

ইংরেজি অক্ষর “ভি” আকার ধারন করে উড়ে যাওয়ার সময় ‘ভি’ আকারের প্রথম পাখিটা যখন ক্লান্ত হয়ে পড়ে তখন সে ঘুরে পিছনের দিকে আসে এবং পরের পাখিটি তার দায়িত্ব নেয়।   

অভিন্ন লক্ষ্য অর্জনে দলবদ্ধ গ্রুপে কাজকরা একদল মানুষ বা দক্ষিণে উড়ন্ত হাস পাখীর দলের পক্ষে বুদ্ধিমানের কাজ হবে কঠোর কাজে নিয়োজিত সদস্যকে  সময় মত নতুন সদস্য দ্বারা বদলী করা।

পিছনের হাসগুলো কিছু সময় পর পর সমস্বরে ডাকতে থাকে, যাতে  অগ্রগামী সব হাস পাখীরা তাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার গতি বজায় রাখতে উত্সাহিত বোধ করে।

পরিশেষে একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণীয় বিষয়- যখন কোন হাস অসুস্থ হয়ে পড়ে বা পতিমদ্ধে বন্দুকের গুলিতে আহত হয়ে লাইন থেকে বেরিয়ে নিচের দিকে পড়তে থাকে তখন দলের দুটো হাস সেই আহতকে সাহায্য  করার জন্য তাকে অনুসরণ করে মাটিতে নেমে আসে। আহত হাসটি যতক্ষণ না উড়তে সক্ষম হয় বা মারা যায় ততোক্ষণ পর্যন্ত সাহায্যকারী হাস দুটি সেখানেই অবস্থান করে। পরবর্তীতে তারা হয় নিজেরা উড়ে দলের সাথে যোগদান করে অথবা পরবর্তীতে উড়ে যাওয়া অন্য দলের সাথে যোগ দেয়।

 

শিক্ষণীয়ঃ ঝাঁকবাঁধা উড়ন্ত হাসের মত বোধশক্তি পোষণ করলে আমরা সবসময় একে অপরের পাশে দাঁড়াব।

Category: Bangla, Moral Stories

Write a comment