বিধাতার দান, বিধাতার জ্ঞান, দিয়েছে পৃথিবী ভরে, সব উজাড় করে
চাতুরী ও ছলে, জ্ঞান বিজ্ঞান ও ক্ষমতা বলে
প্রতিক্ষন প্রতিপদে মানুষ তা ধ্বংস করে, নির্বিচারে!
সেকি নয় সীমা লঙ্ঘন বর্বরতা! নয়কো তা নির্মম নির্দয় অমানবিকতা?

বিধাতার জমি, বিধাতার জল, বিধাতার পাথর পাহাড় জঙ্গল
ভেঙ্গে কেটে সাফ করে, পুরো মন ভরে।
বানাচ্ছে মানুষ, যেন পুরো বেহুস, শত কারখানা, অট্টালিকা
চলেছে বানিয়ে কত হাইওয়ে রানওয়ে শত; মুল শক্তি চালিকা।

এত সব কিছু নয়, মানুষের বেলায়
নয় কোন পাপ, যেন সাত খুন মাপ, উন্নয়নের অছিলায়।

ধুয়ো ধুলো আবরিত পাতা, পারে না সরাতে তা শিশুসম গাছ
যন্ত্র দানবের বর্জ্যে দুষিত জলের মাছ।
তারা সব হায় কত অসহায়!
করে হাঁসফাঁস, পারে না নিতে নিঃশ্বাস।

কচি ডাল পাতা বাতাসে ছটফটায়, মাছগুলো শুধু খাবি খায়
মরছে সব ধুকে ধুকে, কত ব্যথা নিয়ে বুকে
যেন তারা গ্যাস চেম্বারে ভরা কৃতদাস।

মানুষের খুন মানুষ করলে ফাঁসি যদি তার হয়
মানুষ যদি প্রকৃতি মারে সেটা কি হত্যা নয়?
তবে কেন তার, হয়না বিচার?

মানুষ মানুষকে করলে অত্যাচার, যদি তার হয় বিচার আইনের জালে!
শোন পেতে কান, মানুষ মারিছে প্রকৃতির সন্তান, অবিরাম অবিরত
ঘটনা শত শত, প্রমান আছে যথাযত।
মানুষের এত অনাচার, কেন হবে না তার বিচার? মানুষই বিচারক বলে!

বিচার না পেয়ে শেষে, জনতা উঠলে ফুঁসে,
হয়তো থামাতে পারে আইনের জোরে, জেল জরিমানা বা পুলিশে।
প্রকৃতির ক্রোধানল থামাতে পারে না কোন বাহুবল, সেত দুর্বার অপ্রতিরোধ্য
তাকে থামাতে পারে না কোন আরাধ্য, নয় সে কারো বাধ্য।

রুষ্ট ধরণী নয় সে মরমী, সেত অকুতোভয়, দুর্বল জনতা নয়
সে বিধাতার বিচার দণ্ড।
নিরীহ গাছ পালা পাখী পশু বা নিষ্পাপ মানব শিশু
সব ভেঙ্গে চুরে দেবে, কিছু না ভেবে, করে দেবে খণ্ড বিখণ্ড।

Category: Meaning of Life

Write a comment