নরপতি খাটি অতি, বিধাতা মহাস্রষ্টা
ভূত ভবিষ্যৎ কাল মহাকালের সর্বদ্রষ্টা।
কার সেবা নেবে, কাকে ফিরিয়ে দেবে
কেউ জানে না তা আগাম, তিনি ছাড়া অন্য কোন নাম।

পৃথিবী এক ক্ষুদ্র বিন্দু খন্ড, অনন্ত অসীম বিশ্ব ব্রমান্ড।
এ পৃথিবীর যা কিছু শরীর-জীব আর জড়
হোক না তা যত শক্তি, যত বড়
বিন্দু সমও নয়, বিশাল পৃথিবীর তুলনায়।

বিশ্ব ব্রমান্ড, কত বিশাল কত প্রকান্ড, কেউ তা না জানে
পরিমাপ অসম্ভব মনুষ্য জ্ঞানে, যা হচ্ছে প্রসারিত প্রতিক্ষনে।

সহ-স্রষ্টা বেশে এ পৃথিবীতে এসে
বাস করিছে বিধাতা স্বয়ং।
সৃষ্টির সাজে সকলের মাঝে
প্রকাশিছে নিজেকে সারাবেলা সারাক্ষণ।

প্রতিটি সৃষ্টি এ ধরাতে, স্রষ্টার বাস তাতে বস্তু আকারে।
সবই মহাশক্তির আধার, বাহিরে পৃথক অভিন্ন ভিতরে।

আমি নরাধম অধমের অধম সময়ের কাছে বড় অসহায়
প্রতিক্ষন হয় শুধু ক্ষয়, সময় হলে জ্বলে নিঃশেষ হয়ে যায়।

তুমি নিরাকার আমি অংশ তোমার।
নানা আকারে বন্দি করেছো মোরে, দিয়েছ সাজা
তুমি প্রভু আমি প্রজা, আমি ভৃত্য তুমি রাজা।

আকার যে সত্যিকার বন্দিশালা, ভরা শুধু অতৃপ্তি অনিশ্চয়তা আর জ্বালা
পাই না কূল, থাকি সদা ব্যকুল, কখন যাব ফিরে নিজ ঘরে
আমি অসহায়! আকার না ছেড়ে ফেরা কি যায় নিরাকারের নীড়ে!

Category: Meaning of Life

Write a comment