মানুষ প্রতিনিধি তাঁর, মহাস্রষ্টা বিধাতার
এই সীমাহীন বিশ্ব ব্রমান্ড অধীন যার।
বিধাতা সর্ব দাতা, সহ-স্রষ্টা বেশে এ ধরাতে এসে
পূর্ণ করে যত, সাধ মন মত।

সৃষ্টি যত সহস্র শত, হোক তা যত ক্ষুদ্র, যত কদাকার
যা কিছু দেখ এ ধরার, সব তার, অংশ বিধাতার।

আকারে অমিল, ক্ষুদ্র বা মরণশীল, সব কিছু এ ধরায়
আকার ছাড়লেই সবই হয়, অসীম অবিনশ্বর অক্ষয়।

বিধাতা নিয়েছে ভার, সব সৃষ্টি তাঁর
কারো প্রতি কোন, করে না তিনি জেন, অন্যায় অবিচার।
সুখ দুঃখ যাই, দেখ এ ধরায়,
সব কিছুর মান সমান, কাটায় কাটায়
অসমতা নেই এক চুল, যা দেখ সব তার ভুল।

সবার জন্য পরিকল্পনা তাঁর আছে
কোন সৃষ্টিই নগন্য নয় তাঁর কাছে।
বিধাতার ভুবন, তাঁরই সৃষ্টি ছোট বড়, জড় ও জীবন
মানুষ জীব জড় যত, সব এসেছে তারই ইচ্ছা মত।

বিধাতার এ ধরা প্রাচুর্যে ভরা, অভাবের স্থান নেই কোন
অভাব বলে কিছু নাই, সবই বানানো কেবল ভাবনায়
ভাবনার অভাব হয় না শেষ, ধনী বা দরিদ্র নির্বিশেষ।

এ পৃথিবীতে যত যুদ্ধ, দ্বন্দ্ব যত হানাহানি
সব তার জন্ম অভাব বোধে সম্পদ নিয়ে টানাটানি।

অভাব, কোন জীবন নেই না কেড়ে
অভাবের ফলে মানুষ যায় না এ পৃথিবী ছেড়ে।
জন্ম মৃত্যু পরজীবন, সেসব অতল গভীর চিন্তার ভুবন।

দেখ ভেবে সবাই, একথা কি সত্য নয়?
ধনী দরীদ্র উভয়, মেধাবী, বিজয়ী আর শত বর্ষী হয়।
বলবে সবে, বাচা কি এ ভবে, শুধু বছর গুনে হয়
প্রতিজনে শরীরে ও মনে, ভালবাসা নিয়ে বাচার মত বাচতে চাই।

ভালবাসা সেত মনিহার, দারীদ্রতার অলংকার
ক্ষুধা ভরা পেট এর টুকরো রুটি
ভাগাভাগি করে কারো পেট না ভরে
তবু হেসে হয় কুটি কুটি।

ক্লান্ত দেহ, নেই কোন মোহ, ঘুমের কোলে লুটিয়ে পড়ে
চোখের পাতা একটুও না নড়ে
যেন স্বয়ং বিধাতা দয়াল, বিছিয়েছে ঘুমের আঁচল।

নেই যেখানে ক্ষুধার জ্বালা, ভালবাসা সেখানে যেন কন্ঠক মালা
খাদ্য অঢেল ভরা, তবু একটুও পারে না খেতে তারা।
ভালবাসা তাদের দামি পণ্য, কিনতে হয় ক্ষনেকের জন্য
সময়ের পর তাজা সব যেমন বাসি হয়, ভালবাসাও ফুরায়।

খাওয়া পরা ঠাসা ঠাসা, কিন্তু ভালবাসা যেন ধনীর দুরাশা
ভালবাসার কাঙ্গাল অনেক ধনী হায়, মরে বাচতে চায়।

ভরা পেটে শুতে আসে, নরম বিছানায় নিয়ন্ত্রিত বাতাসে
তবু আসে না তাতে, ঘুম কোনমতে।
দুশ্চিন্তা ভরা মন, পাছে চুরি গেল সঞ্চিত যক্ষের ধন।
রোজ রোজ ভুরিভোজ
পেট জ্বলে থেমে থেমে, ক্ষুধা নয়, বদ হজমে।

আকারে থাকে যতদিন, মনে হয় যাকিছু সব অন্তবিহীন
হাতের মুঠোই নিতে চায় পুরো বিশ্ব।
অবশেষে সব হারায়, সব রেখে চলে যায়
হয়ে পুরো নিঃস্ব।

পৃথিবীর এত ভান্ডার, স্বর্গে নেই কোন স্থান তার
কেবল সেসব হারালেই, আর শরীর ছেড়ে গেলেই
পাবে তুমি স্বর্গ আর সব দেবালয়ের অর্ঘ্য।

শুধু বিধাতাই জানে কখন কাকে কবে
আনবে এ ভবে আবার নিয়ে যাবে।

মাঝের জীবন যা অনিশ্চিত প্রতিক্ষন
তার দায় কি ভাবে মানুষের উপর বর্তায়!
ভেবে না পাই আমি অধম অসহায়।

Category: Meaning of Life

Write a comment